STATUS UPDATE: কিটো ডায়েট ছাড়া কোনো কথা হবে না 😊

অরোরা ছোট্ট পায়ে কীভাবে ব্যাথা পেল? | Arora Got Boo Boo

Viewers, সব কিছু নিয়েই মানুষ বেঁচে থাকে। সবার লাইফেই স্ট্রাগল আছে। আমরা আপনাদের সাথে আমাদের রেগুলার লাইফস্টাইল শেয়ার করে থাকি। কিন্তু অন্য সবার মতই আমাদের লাইফেও আপস এন্ড ডাউন আছে। সব সময় যে শুধুই ফান তা কিন্তু নয়। আমরা যেহেতু সবকিছুই আপনাদের সাথে শেয়ার করছি এবং আপনারাও আমাদের লাইফের একটা অংশ হয়ে গিয়েছেন তাই আজকের ভ্লগটিও শেয়ার করছি যার মাঝে আছে কিছু কষ্ট, বেশ খানিকটা টেনশন এবং অল্প কিছু আনন্দ।

ভিউয়ারস, আশা করি আপনারা সবাই ভালো আছেন। অরোরা গত ২ দিন যাবত ঠিক মত হাঁটছে না, কারন ও পায়ে ব্যথা পেয়েছে। আজ গিয়েছিলাম অরোরার ডাক্তারের কাছে।

বাচ্চারা কত কিউট হয়, অরোরার পায়ে ব্যথা কিন্তু ও এই ব্যাথার ফিলিং টা অ্যাডপ্ট করে নিয়েছে। দেখুন ও কীভাবে দাড়াচ্ছে। পায়ের টো এর উপর ভর দিয়ে ও হাটছে ও দাড়াচ্ছে। দেখে মনে হচ্ছে এটাই নরমাল।

২ দিন আগে আমাদের বাসার প্যাটিও তে বসে শারান ছবি আঁকছিলো। তখন অরোরা পাশে খেলছিল এটা ওটা দিয়ে। হঠাৎ করেও চিৎকার করে উঠে, ব্যাথায়। আমি দৌড়ে যাই, দেখি ও ভীষন কান্না করছে। আমরা দু'জনে প্রথমে বুঝতে না পারলে কয়েকট মিনিটের মাঝে বুঝে যাই ও পায়ের নিচে ব্যথা পেয়েছে। আমরা ধরেই নিলাম কোনো শার্প কিছুর উপর ও স্টেপ করেছে। সাথে সাথে আমি ওকে বেসিনে নিয়ে গরম পানি দিয়ে পা পরিষ্কার করে দেই। খুবই অল্প ব্লিডিং হয়েছিল। কিন্তু অরোরা ব্যথায় প্রায় ১ ঘন্টা কান্না কাটি করে, আমরা ওকে বাচ্চাদের ব্যথার ওষুধ দিয়ে ঘুম পাড়িয়ে দেই।

ঘুম থেকে উঠে সব ঠিক। কিন্তু ভালো করে লক্ষ করলাম ও হাটছে টো এর উপর ভর দিয়ে। ভাবলাম হয়তো অল্প ব্যথা আছে তাই এমন করে হাটছে। আমরা ওষুধ কন্টিনিউ করেছি।

পরদিন দেখি একই অবস্থা। টো এর উপর ভর দিয়ে হাটে, কিন্তু আবার যখন জাম্প করে তখন ঠিক ঠাক মত করছে। জুতো পড়ে হাটার সময় কোনো সময় কোনো সমস্যা হচ্ছে না। এখান থেকে আমরা ধরে নিলাম ওর মনে এক ধরনের ভয় কাজ করছে, সেদিন ব্যথা পাওয়ার মেমরি টা ভুলতে পারে নি। কিন্তু, রাতে খেয়াল করলাম, পায়ের নিচে ব্যথা পাওয়ার জায়গাটা হালকটা একটু ফোলা এবং গরম। তখনই আমরা ডিসাইড করলাম, ডাক্তার কে জানানো হবে।

সকাল সকাল উঠে শারান প্রথমেই ডাক্তারকে ফোন দিয়ে স্কেজিউল করে নিলো। গেলাম ডাক্তারের কাছে। অরোরা ডাক্তার কে পছন্দ করে তবে, ওখানে ওর সব মেমরি হচ্ছে পেইনফুল মেমরি। ছোট থেকে ও সব ধরনের শট দিয়ে আসছে এই ডাক্তারের কাছে। সো যাই হোক, ডাক্তার অনেক পরীক্ষা করলো, পায়ের চামড়া খুচিয়ে ভেতরে দেখার চেষ্টা করলো কিছু আছে কি না। দেখা গেলো কিছুই নেই। ডাক্তার বললো ওখানে কোনো পোকা কামড়ে দিয়েছে অথবা অরোরার কোনো পোকার উপর স্টেপ ইন করেছিলো। ওষুধ দিয়ে দিলো। আমরা ওষুধ নিয়ে চলে এলাম।

বাসায় এসে অরোরা ঘুমালো, আর আমি অফিসের কাজ করলাম। বিকেলের দিকে শারান প্যাটিওতে ফ্লোর ক্লিন করার সময় একটা জিনিস পেল। ভাঙা সুই। ও আমাকে এনে দেখিয়ে বললো এটা হতে পারে ওর পায়ে কোনোভাবে ঢুকেছিলো।

আমরা এখনও নিশ্চিত নই আসলে কি এটা সুই নাকি ডাক্তারের কথা অনুযায়ী পোকার কামড়। আমাদের প্যাটিও তে কিছু প্ল্যান্ট আছে। হতে পারে ওখান থেকে পোকা বের হয়েছে।

ডাক্তার বলেছে ওষুধ ব্যবহার করে ৪৮ ঘন্টা পর্যন্ত দেখতে। আমরা যদি দেখি অরোরার ঠিক মত হাটছে তাহলে বুঝতে হবে ওর ব্যথা ভালো হয়ে গিয়েছে। দেখা যাক কী হয়।

 

SUBSCRIBE

অন্যান্য পোস্ট