STATUS UPDATE: কিটো ডায়েট ছাড়া কোনো কথা হবে না 😊

(VIDEO) কিটো ডায়েটে Cheat Day | কিটো ডায়েটে কাচ্চি খাওয়া যাবে?

হ্যালো ভিউয়ারস, Once again, Welcome Back to RobinsHQ. ধরে নিচ্ছি আপনি বেশ কিছুদিন হলো কিটো ডায়েট শুরু করেছেন। আমি জানি কিটো ডায়েটে কিরকম কষ্ট হয়। আমি আপনি আমরা যারা কিটো ডায়েটে আছি তাদের প্রায়শই খেতে ইচ্ছে করে কাচ্চি বিরিয়ানি, মোরগ পোলাও, সিঙ্গারা, ভাজা-পোড়া, বার্গার, পিজ্জা ইত্যাদি। কিন্তু কষ্ট করে ইচ্ছেটা নিয়ন্ত্রনে রাখতে হয়। আমি আজ আপনাদের বলবো কিটো ডায়েটে হঠাৎ করে একদিন শর্করা জাতীয় খাবার খাওয়া যাবে কি না। Keep Watching.

ভিউয়ারস, আপনারা জানেন কিটো ডায়েটে থাকাকালীন কোনো শর্করা জাতীয় খাবার খাওয়া নিষেধ। আপনার কিটো ডায়েটে যদি প্রতিদিন সর্বোচ্চ ২০ গ্রাম কার্বোহাইড্রেড খাওয়ার অনুমতি থাকে তাহলে এর চেয়ে বেশি খেলে কি হতে পারে?

আজকের ভিডিওতে আমি উদাহরণ হিসেবে ধরে নিচ্ছি আপনি ৩ সপ্তাহ বা ২১ দিন টানা সঠিক উপায়ে কিটো ডায়েট করেছেন এবং আপনার কিটো ডায়েটে কার্বোহাইড্রেটের পরিমান ছিল সর্বোচ্চ ২০ গ্রাম। এখন হঠাৎ, একদিন ২০ গ্রামের বেশি কার্বোহাইড্রেড খেয়ে ফেললেন, তাহলে তিনটি জিনিস হতে পারে, মনযোগ দিয়ে শুনুন:

১। আপনার ব্লাড সুগার হঠাৎ করে বেড়ে যাবে এবং আপনার শরীর পুনরায় গ্লুকোজ থেকে শক্তি নেয়া শুরু করবে।

২। আপনার শরীরে কিটোন উৎপন্ন হওয়া বন্ধ হয়ে যাবে।

৩। ডায়াবেটিসে আক্রান্ত ব্যক্তিদের হার্টে সমস্যা সহ অন্যান্য গুরুতর সমস্যা দেখা দিতে পারে।

সো ভিউয়ারস বুঝতে পারছেন যাদের ডায়াবেটিস রয়েছে তারা যদি কিটো ডায়েটে চিট day করতে যান তাহলে গুরুতর স্বাস্থ্যঝুঁকিতে পড়তে পারেন। এবং মনে রাখবেন, সুস্থ্য ব্যক্তিদেরও, শরীরে হঠাৎ করে ব্লাড সুগার বেড়ে যাওয়া একেবারেই ভাল লক্ষণ নয়।

তাহলে কি 'কিটো চিট ডে' করা যাবে না?

না। কিটো চিট-ডে কারো জন্যেই ভাল নয়। কারণ এতে গুরুতর স্বাস্থ্য ঝুঁকি রয়েছে। Wait, don't be sad.

আপনি কিটো চিট-ডে করতে পারবেন না তবে আপনি কিটো ডায়েটে এক বেলা Cheat Meal খেতে পারেন। অর্থ্যাৎ সারাদিন শর্করা না খেয়ে একবেলা আপনি শর্করা খেয়ে মনের আশা পূরণ করবেন। তবে আপনি ডায়াবেটিসে আক্রান্ত হলে এটা করতে যাবে না।

এখন আপনার মনে আসতে পারে, আবার কিটোসিস প্রক্রিয়ায় ফিরে যেতে কতদিন লাগবে?

এটা নির্ভর করছে আপনি কি পরিমান খেয়েছেন তার উপর। সাধারণত। ২ থেকে ৩ দিনের মধ্যে একজন সুস্থ্য স্বাভাবিক মানুষের শরীর কিটোসিস প্রক্রিয়ায় ফিরে যায়  এবং কিটোন উৎপন্ন শুরু করে। আপনি চাইলে, চিট-মিল খাওয়ার পরদিন হালকা শারীরীক পরিশ্রম করে কিটোসিসে ফেরত আসার সময়টিকে ত্বরান্বিত করতে পারেন।

সো ভিউয়ারস, আপনারা খুশি তো? মাসে একদিন, একবেলা মন ভরে খেয়ে নিন কাচ্চি, মোরগ পোলাও ইত্যাদি। ওজন কমানো যখন আপনার উদ্দেশ্য তখন মাসে একদিন একবেলার ভারী খাবার খাওয়াই যায়।

ও হ্যাঁ, আপনি যদি কিটো ডায়েটে চিট করতে না চান কিন্তু ফ্রাইড রাইস অথবা চিকেন বিরিয়ানি ইত্যাদি খেতে চান তাহলেও কোনো সমস্যা নেই। RobinsHQ তে পেয়ে যাবেন কিটো ফ্রেন্ডলি সব মজার মজার খাবারের রেসিপি ভিডিও। এই ভিডিওর ডেসক্রিপশনে পেয়ে যাবেন কিটো ফ্রাইড রাইস রেসিপি ভিডিও টি।

Thanks for watching. If you are new please Subscribe to our channel. See you soon. Bye bye.

 

কিটো ডায়েটে কি মধু খাওয়া যাবে?

কিটো ডায়েটের প্রাথমিক ধারনা

কিটো ডায়েটে কি কি ফল খাওয়া যাবে

কিটো ডায়েটে সারাদিনের খাবার

SUBSCRIBE

অন্যান্য পোস্ট